কেউ ভালোবাসেনি

0
19

চাদেঁর সাথে আমার আজন্মকালের সখ্যতা।
শৈশব কালে মাঝে মাঝে চাঁদনী রাতে
ঘর ছেড়ে বেরিয়ে যেতাম,
মেঠো পথ ধরে-হিজল বাগান পেরিয়ে
বৈকালী বিলের ধারে আপন মনে ঘুরে বেড়াতাম।
বিলের জলে জোছনার সে কি রূপ!
মৃদু বাতাসের তালে ঢেউগুলো যখন চাঁদটাকে
ভাঁজ করতে করতে তীরে নিয়ে আছড়ে ফেলে দিত
আমার সে কি বিস্ময়!

ঢেউয়ের সাথে খেলতে থাকা চাঁদটাকে দেখতে দেখতে
আমি পৌছে যেতাম বিলের দক্ষিণ কোণের তেঁতুল গাছের পাশে-
যেখানে সন্ধে রাতে ঝাঁক বেধে বকেরা আবাস গাড়ত।

জান, চাঁদটা আমার সাথে হেঁটে বেড়াত!
আমি অনেক পরীক্ষা করে দেখেছি-
প্রতিদিন আমার পথ চলার সঙ্গী হত চাঁদ।
যখন বাড়ি ফিরতাম
ফের আমাকে পৌছে দিতে বাড়ি পর্যন্ত আসত।
সখ্যতা ছিল বলেই বুঝি এমনটি হত?

একবার বউচি খেলার সাথীকে বললাম-
আমি যেখানে যাই-চাঁদটাও যায়।
সে বলে কিনা তার সাথেও যায়!
তাকে মিথ্যেবাদী ঠাওরে কি ঝগড়াটাইনা
করেছিলাম সেদিন।

কৈশোর কালে বড় বেশি চঞ্চল আর উচ্ছ্বল ছিলাম।
বন্ধুদের কাছে শুনতাম-
কেউ কেউ নাকি ভালোবাসে আমায়।
আমি এসবের কী-ইবা বুঝতাম।
চলার পথে কারো সাথে গড়ে উঠে সখ্যতা,
তার গভীরে যাওয়া হয়নি কখনো
হয়তো যেতে চাইনি।
তাদের সাথে মিশতে মিশতে বুঝলাম
তারা সবাই এক একটা চাঁদ।
নিজের আলোয় আলোকিত করছে নিজেকে
কিংবা ভালোবাসে আমার মত অনেককেই।
আসলে তারা কেউ ভালোবাসেনি।

বিশ্বাস হচ্ছেনা?
তাহলে একটা গল্প বলি শোন-

কলেজে পড়ার সময় একটি মেয়ে
ভালোবাসত আমায়।
কিছুটা উদাসীন ছিলাম আমি,
তেমন গুরুত্ব দিতে চাইতামনা।
তার এক কথা ভালোবাসবেই আমায়
সেটা আমি চাই বা না চাই।
বন্ধুদের সাথে নাকি জেদ ধরেছিল
আমাকে তার করেই ছাড়বে!
তাঁর ভালোবাসায় সিক্ত হতে হতে
কিংবা তার জেদটাকে জিতিয়ে দিতে
একদিন সিদ্ধান্ত নিলাম
আমিও ভালোবাসব তাকে।

যেদিন আমি তাকে বলতে গেলাম
“ভালোবাসি”
দেখি
সে আর ভালোবাসেনা আমায়!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here